1. info@shikorsongbad.com : শিকড় সংবাদ :
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:১৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেন কচুয়ার মেধাবী ছাত্র তুহিন কচুয়ার কাদলা ইউনিয়নে ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু ৪০ বছরের সম্পত্তিগত বিরোধ নিষ্পত্তি করলেন কাদলা ইউপি চেয়ারম্যান নুরে-ই আলম রিহাত কচুয়ায় সাংবাদিক শান্তুু ধরে’র মায়ের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত টানা ৩৪ বছর কর্মজীবন শেষ করে অবসরে যাচ্ছেন জনতা ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন কচুয়ার সাচারে রথযাত্রাকে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন করার লক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা কচুয়ার কৃতি সন্তান আবু ছালেহ বিআইডব্লিউটিএ’র সহকারী সমন্বয় কর্মকর্তা হিসেবে পদোন্নতি কচুয়ায় কাদলা ইউনিয়ন নেতাকর্মীদের সাথে সোহেল ভূঁইয়ার মতবিনিময় কচুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক কমিটি গঠন কচুয়ায় গরু খামারের সফল উদ্যোক্তা জিয়া উদ্দিন মজুমদার

শসা চাষ করে ভাগ্য বদলানোর স্বপ্ন দেখছেন কৃষকরা

জেলা প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত: সোমবার, ১২ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩৪ বার পড়া হয়েছে

মাগুরায় দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে শসা চাষ। চলতি মৌসুমে মাগুরা জেলায় ৫০ হেক্টর জমিতে শসার চাষ হয়েছে। পানির ওপর মাচায় হলুদ-সাদা ফুল কিংবা থরে থরে ঝুলছে শসা। এমন দৃশ্যই দেখা যায় মাগুরার বিভিন্ন মাঠ ও খেত খামারে। এবার শসার আবাদও ভালো হয়েছে।

আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলনও ভালো। এতে হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখে। শসার বীজ রোপণের ৩০ থেকে ৩৫ দিনের মধ্যে গাছে ফল ধরা শুরু হয়।

বিঘাপ্রতি খরচ হয় ১০ হাজার আর বিক্রি হয় ২০ হাজার টাকায়। লাভ বেশি হওয়ায় শসার চাষে আগ্রহী হচ্ছেন অনেকেই।

সদর উপজেলার ট্যাংগাখালী মাঠ ঘুরে দেখা যায়, শসার পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষকরা। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা পাইকারদের কাছে শসা বিক্রি নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন অনেক কৃষক। দূর-দূরান্ত থেকে আসা পাইকারদের কাছে প্রতি মণ শসা ১ হাজার ৩০০ থেকে ১ হাজার ৪০০ টাকা বিক্রি করছেন তারা।

শসা চাষি পারভেজ বলেন, এ মৌসুমে দুই একর জমিতে শসার আবাদ করেছেন, যাতে খরচ হয়েছে ৮০ হাজার টাকা। এতে বিক্রি হবে ২ লাখ টাকার বেশি। এবার আবহাওয়া ভালো। বাজারে শসার ভালো দাম পাওয়া যাচ্ছে।

গোমকোট গ্রামের শসা চাষি কামাল হোসেন বলেন, প্রায় দেড় একর জমিতে শসার আবাদ করেন তিনি। প্রথমবার অধিক বৃষ্টির ফলে অনেক গাছ মারা যায়। পরে আবার গাছ লাগাই। এখন ভালো অবস্থায় রয়েছে। কয়েক দিনের মধ্যে শসা বিক্রি শুরু করব। কিন্তু কৃষি অফিসার বা তাদের অফিস থেকে কোনো সুযোগ পাইনি।

এ বিষয়ে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সুশান্ত কুমার প্রামাণিক জানান, এ মৌসুমে মাগুরা জেলায় প্রায় ৫০ হেক্টর জমিতে শসার আবাদ করা হয়।

আবহাওয়া ভালো থাকায় বাজারে শসার ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ভালো দামও পাচ্ছেন তারা। এছাড়া কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষকদের মধ্যে প্রয়োজনীয় বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে বলেও জানান এ কৃষি কর্মকর্তা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!