1. info@shikorsongbad.com : শিকড় সংবাদ :
সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
কচুয়ায় যুবলীগ নেতা নিমাই সরকারের উপর হামলা , থানায় অভিযোগ কচুয়ার গাউছিয়া ওয়াদুদীয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও এতিমখানায় শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্বল বিতরন আওয়ামী লীগের দলীয় বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার কচুয়ার আব্দুস সামাদ আজাদের কচুয়ার সাচার ডিগ্রি কলেজে নবীনবরণ অনুষ্ঠিত কচুয়া প্রেসক্লাবের আয়োজনে মাস ব্যাপী শিল্প ও পণ্য মেলার উদ্বোধন পাথৈর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন যারা কচুয়ার সাবেক এমপি রনির ছোট ভাই ইসমাইল মিয়াজী ল্যাব এইড হাসপাতালে ভর্তি কচুয়ার তুলপাই হযরত দারাশাহ (রা:) জামে মসজিদের সভাপতি হলেন সমাজসেবক আজিজুর রহমান পাটওয়ারী সেঙ্গুয়া দক্ষিন পাড়া দরিদ্র কল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা কচুয়ায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে ত্রান ও ঢেউটিন বিতরণ

পবিত্র শবেবরাত আজ

নাজমুল রনি
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৮ মার্চ, ২০২২
  • ২০২ বার পড়া হয়েছে

পবিত্র শবেবরাত আজ। যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে দেশের মুসলিম সম্প্রদায় দিনটি পালন করবে।

হিজরি ১৪ শাবান দিবাগত রাতে পবিত্র শবেবরাত পালন করা হয়। শবেবরাত ‘লাইলাতুল বরাত’ নামেও পরিচিত। ফার্সি শব্দ ‘শব’ অর্থ রাত। আর বরাত অর্থ ভাগ্য। এ জন্য এ রাতকে ভাগ্য রজনীও বলা হয়। এ রাতে মহান আল্লাহর কাছে পাপ থেকে মুক্তি কামনা করে প্রার্থনা করা হয়। অনেকেই এ রাতে নফল নামাজ ও কুরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে পার করেন। এ ছাড়াও বাবা-মাসহ আত্মীয়দের কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন অনেকেই।

পনেরো শাবানের রাতের ফজিলত সম্পর্কে একাধিক ‘মারফু’ হাদিস ও ‘আসারে সাহাবা’ বর্ণিত রয়েছে। এগুলো দ্বারা ওই রাতের ফজিলত ও মর্যাদা প্রমাণিত হয়। সালাফে সালেহীনের কেউ কেউ এ রাতে নফল নামাজের ব্যাপারে যতœবান হতেন। আর শাবানের রোজার ব্যাপারে তো সহিহ হাদিসগুলো রয়েছে। অবশ্য শুধু পনেরো তারিখের দিনে রোজা রাখার ব্যাপারে যতœবান হওয়া মাকরূহ। পনেরো তারিখের সাথে দু-একদিন মিলিয়ে নেয়া উত্তম। আর এই দিন বা রাতে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা এবং সাজ-সজ্জার ব্যাপারে যতœবান হওয়া ইত্যাদি বিদয়াত ও ভিত্তিহীন। এ রাতে ব্যক্তিগত পর্যায়ে সাধারণ নফল নামাজের মতো নামাজ পড়া উচিত। হাদিস দ্বারা শুধু এতটুকুই প্রমাণিত হয়, এ রাতের নফল নামাজ হবে লম্বা, সেজদা হবে দীর্ঘ। দুই রাকাত করে যত ইচ্ছা পড়া যাবে; রাকাত সংখ্যাও নির্দিষ্ট নেই; কোনো নির্দিষ্ট সূরার সীমাবদ্ধতাও নেই।

ইমাম যাইনুদ্দীন ইবনে রজব দামেস্কী বলেন, একজন মুমিন বান্দার উচিত, এ রাতে জিকির ও দোয়ার জন্য পুরোপুরি অবসর হওয়া। প্রথমে খাঁটি মনে তওবা করবে; এরপর মাগফিরাত ও ক্ষমা প্রার্থনা করবে; আপদ-বিপদ দূর হওয়ার জন্য দোয়া করবে এবং নফল নামাজ পড়বে। সব সময় সেসব গুনাহ থেকে বিরত থাকবে যেগুলো ওই রাতের বিশেষ ফজিলত (ব্যাপক ক্ষমা) থেকে মানুষকে বঞ্চিত করে। যেমন শিরক, হত্যা, জিনা, হিংসা ইত্যাদি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!