1. info@shikorsongbad.com : শিকড় সংবাদ :
শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১০:৪৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেন কচুয়ার মেধাবী ছাত্র তুহিন কচুয়ার কাদলা ইউনিয়নে ভোটার হালনাগাদ কার্যক্রম শুরু ৪০ বছরের সম্পত্তিগত বিরোধ নিষ্পত্তি করলেন কাদলা ইউপি চেয়ারম্যান নুরে-ই আলম রিহাত কচুয়ায় সাংবাদিক শান্তুু ধরে’র মায়ের ২য় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত টানা ৩৪ বছর কর্মজীবন শেষ করে অবসরে যাচ্ছেন জনতা ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন কচুয়ার সাচারে রথযাত্রাকে সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ন করার লক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা কচুয়ার কৃতি সন্তান আবু ছালেহ বিআইডব্লিউটিএ’র সহকারী সমন্বয় কর্মকর্তা হিসেবে পদোন্নতি কচুয়ায় কাদলা ইউনিয়ন নেতাকর্মীদের সাথে সোহেল ভূঁইয়ার মতবিনিময় কচুয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক কমিটি গঠন কচুয়ায় গরু খামারের সফল উদ্যোক্তা জিয়া উদ্দিন মজুমদার

পবিত্র শবেবরাত আজ

নাজমুল রনি
  • প্রকাশিত: শুক্রবার, ১৮ মার্চ, ২০২২
  • ৪৪ বার পড়া হয়েছে

পবিত্র শবেবরাত আজ। যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে দেশের মুসলিম সম্প্রদায় দিনটি পালন করবে।

হিজরি ১৪ শাবান দিবাগত রাতে পবিত্র শবেবরাত পালন করা হয়। শবেবরাত ‘লাইলাতুল বরাত’ নামেও পরিচিত। ফার্সি শব্দ ‘শব’ অর্থ রাত। আর বরাত অর্থ ভাগ্য। এ জন্য এ রাতকে ভাগ্য রজনীও বলা হয়। এ রাতে মহান আল্লাহর কাছে পাপ থেকে মুক্তি কামনা করে প্রার্থনা করা হয়। অনেকেই এ রাতে নফল নামাজ ও কুরআন তেলওয়াতের মাধ্যমে পার করেন। এ ছাড়াও বাবা-মাসহ আত্মীয়দের কবর জিয়ারত ও দোয়া করেন অনেকেই।

পনেরো শাবানের রাতের ফজিলত সম্পর্কে একাধিক ‘মারফু’ হাদিস ও ‘আসারে সাহাবা’ বর্ণিত রয়েছে। এগুলো দ্বারা ওই রাতের ফজিলত ও মর্যাদা প্রমাণিত হয়। সালাফে সালেহীনের কেউ কেউ এ রাতে নফল নামাজের ব্যাপারে যতœবান হতেন। আর শাবানের রোজার ব্যাপারে তো সহিহ হাদিসগুলো রয়েছে। অবশ্য শুধু পনেরো তারিখের দিনে রোজা রাখার ব্যাপারে যতœবান হওয়া মাকরূহ। পনেরো তারিখের সাথে দু-একদিন মিলিয়ে নেয়া উত্তম। আর এই দিন বা রাতে বিশেষ খাবারের ব্যবস্থা করা এবং সাজ-সজ্জার ব্যাপারে যতœবান হওয়া ইত্যাদি বিদয়াত ও ভিত্তিহীন। এ রাতে ব্যক্তিগত পর্যায়ে সাধারণ নফল নামাজের মতো নামাজ পড়া উচিত। হাদিস দ্বারা শুধু এতটুকুই প্রমাণিত হয়, এ রাতের নফল নামাজ হবে লম্বা, সেজদা হবে দীর্ঘ। দুই রাকাত করে যত ইচ্ছা পড়া যাবে; রাকাত সংখ্যাও নির্দিষ্ট নেই; কোনো নির্দিষ্ট সূরার সীমাবদ্ধতাও নেই।

ইমাম যাইনুদ্দীন ইবনে রজব দামেস্কী বলেন, একজন মুমিন বান্দার উচিত, এ রাতে জিকির ও দোয়ার জন্য পুরোপুরি অবসর হওয়া। প্রথমে খাঁটি মনে তওবা করবে; এরপর মাগফিরাত ও ক্ষমা প্রার্থনা করবে; আপদ-বিপদ দূর হওয়ার জন্য দোয়া করবে এবং নফল নামাজ পড়বে। সব সময় সেসব গুনাহ থেকে বিরত থাকবে যেগুলো ওই রাতের বিশেষ ফজিলত (ব্যাপক ক্ষমা) থেকে মানুষকে বঞ্চিত করে। যেমন শিরক, হত্যা, জিনা, হিংসা ইত্যাদি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
Theme Customized BY LatestNews
error: Content is protected !!